স্টাফ রিপোর্টার: নরসিংদীতে গাড়ি পোড়ানোর মামলায় বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ও জেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুল কবির খোকনের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশ খায়রুল কবির খোকনকে আদালতে হাজির করলে জেলা ও দায়রা জজ বেগম ফাতেমা নজীব এই নির্দেশ দেন। এদিকে খায়রুল কবির খোকনের মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ সভা ও মিছিল করেছে জেলা যুবদল।
আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ১০ মার্চ হরতাল চলাকালীন সময়ে নরসিংদী সদর উপজেলার পাঁচদোনার চৈতাব নামক এলাকায় চলন্ত একটি ট্রাকে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে অগ্নিসংযোগ করে দুর্বৃত্তরা। ওই ঘটনায় খায়রুল কবির খোকনকে প্রধান আসামী করে সন্ত্রাস দমন আইনে সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ। রাজধানী ঢাকাসহ বিস্ফোরক ও জ্বালাও পোড়ানোর ১৬টি মামলায় স্থায়ী জামিন চেয়ে চলতি মাসের ৪ তারিখে ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে হাজির হয় বিএনপির এই নেতা। তখন আদালতের বিজ্ঞ বিচারক ৭টি মামলায় জামিন মঞ্জুর করলেও বাকী মামলায় জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠায়। এরই ধারাবাহিকতায় রবিবার সকালে সদর মডেল থানার একটি মামলায় খোকনকে নরসিংদী আদালতে হাজির করানো হয়। এ সময় খোকনের আইনজীবীরা আদালতে তার জামিন আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ ও বিবাদীর আইনজীবীদের বক্তব্য শুনে আদালতের বিজ্ঞ বিচারক জেলা ও দায়রা জজ বেগম ফাতেমা নজীব খোকনের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
এদিকে খায়রুল কবির খোকনের মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ সভা ও মিছিল করেছে জেলা যুবদল। বিকেলে চিনিশপুর বিএনপির কার্যালয়ে সভা শেষে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। জেলা যুবদলের আহবায়ক মহসিন হোসেন বিদ্যুৎ এর সভপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মাস্টার, সহ-সভাপতি সুলতান উদ্দিন মোল্লা, যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক এনামুল হক ইলিডন ও শাহেন শা শানু প্রমূখ। বক্তারা খায়রুল কবির খোকনের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত সকল মামলাকে মিথ্যা মামলা অভিহিত করে তাঁর দ্রুত মুক্তির দাবি জানান।

275 total views, 3 views today