নারায়ণগঞ্জে অর্থনৈতিক অঞ্চল পাচ্ছেন জাপানি বিনিয়োগকারীরা একনেক সভায় মোট ৮ প্রকল্প অনুমোদন

0
54

গ্রামীণ দর্পন ডেস্ক: জাপানি বিনিয়োগকারীদের জন্য নারায়ণগঞ্জে অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠাসহ মোট আটটি প্রকল্প মঙ্গলবার অনুমোদন করেছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।

রাজধানীর শেরে-বাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপার্সন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেকের সাপ্তাহিক সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয়।

সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান সাংবাদিকদের বলেন, ‘একনেকের সভায় মোট আনুমানিক ৬ হাজার ২৭৬ কোটি ২৪ লাখ টাকার আটটি প্রকল্প অনুমোদন করা হয়েছে।’

মোট ব্যয়ের মধ্যে সরকারিভাবে অর্থায়ন করা হবে ৩ হাজার ৩১৩ কোটি ৯২ লাখ টাকা এবং ২ হাজার ৯৬২ কোটি টাকা প্রকল্প সাহায্য হিসেবে পাওয়া যাবে, জানান মন্ত্রী।

অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর মধ্যে সবগুলোই নতুন।

অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রকল্প নিয়ে মন্ত্রী জানান, ২ হাজার ৫৮২ কোটি ১৮ লাখ টাকায় ‘নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে জাপানি অর্থনৈতিক অঞ্চলের অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্পটি ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে বাস্তবায়ন করা হবে।

প্রকল্পের খরচের মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে দেয়া হবে ৪৫৪ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। বাকি ২ হাজার ১২৭ কোটি ৮২ লাখ টাকা জাপান থেকে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সির (জাইকা) মাধ্যমে প্রকল্প সাহায্য হিসেবে আসবে।

প্রকল্পের আওতায় বাস্তবায়নকারী সংস্থা বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) ভূমি উন্নয়ন, সড়ক নির্মাণ এবং বিদ্যুৎকেন্দ্র, সাব-স্টেশন, সঞ্চালন লাইন ও গ্যাসের পাইপলাইন স্থাপন করবে।

একনেকের সভায় ১ হাজার ৯৮৩ কোটি ৭ লাখ টাকা ব্যয়ে দেশব্যাপী ৬১ জেলার বিভিন্ন উপজেলা, ইউনিয়ন ও গ্রামের রাস্তায় ৩৪০টি সেতু নির্মাণের একটি প্রকল্পও অনুমোদন করা হয়েছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে তা বাস্তবায়ন করবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সড়কের পাশাপাশি রেল ও নৌপথে যথাযথ গুরুত্ব দিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী সড়ক, রেল, নৌ ও আকাশপথ মিলিয়ে সারাদেশে সমন্বিত যোগাযোগ ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠায় তার পরিকল্পনার কথা পুনরায় সভায় তুলে ধরেন।

একনেক বাকি যে ছয়টি প্রকল্প অনুমোদন করেছে সেগুলো হলো- ১৫৮ কোটি টাকার ‘তাঁতিদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়নে চলতি মূলধন সরবরাহ ও তাঁতের আধুনিকায়ন’ প্রকল্প, ১৫৬ কোটি ৩২ লাখ টাকার ‘কন্দাল ফসল উন্নয়ন’ প্রকল্প, ১২৩ কোটি ৪৭ লাখ টাকার ‘জয়পুরহাটের তুলশী গঙ্গা, ছোট যমুনা, চিড়ি ও হারাবতী নদী পুনঃখনন’ প্রকল্প, ৮৮০ কোটি ৪৬ লাখ টাকার ‘ঢাকা সিটি নেইবারহুড আপগ্রেডিং’ প্রকল্প, ২২৮ কোটি ৬৯ লাখ টাকার ‘সমগ্র দেশে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মন্দির ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও সংস্কার’ প্রকল্প ও ১৬৪ কোটি ৫ লাখ টাকার ‘প্রাথমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের প্রোফাইল প্রণয়ন’ প্রকল্প।

সূত্র: ইউএনবি-

159 total views, 3 views today

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here