মাধবদীতে নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনায় মামলা দায়ের

0
21

মাধবদী প্রতিনিধি: নরসিংদী সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনী সহিংসতায় মাধবদীতে পৃথক সংঘর্ষে নারীসহ আটজন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহতদের নরসিংদী জেলা হাসপাতাল ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানান আহতদের স্বজনরা। গত ৩১ মার্চ সদর উপজেলা নির্বাচনে জয়-পরাজয় ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মাধবদীর আমদিয়া, মহিষাশুড়া, কাঠালিয়া ইউনিয়নে এসব ঘটনা ঘটে। নেয়ামত উল্লাহ গংদের হামলায় গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আমদিয়া ইউনিয়নের মৃত হোসেন আলীর ছেলে হাবীবুর রহমান (হাবি মিয়া)। একই ঘটনায় আহত হয়েছেন নকো মিয়া ও তার শ্বাশুড়ী আনোয়ারা বেগম। তারা সবাই আনারস মার্কার সমর্থক ছিল। এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) মাধবদী থানায় আহত হাবীর স্ত্রী আছমা বাদী হয়ে পাঁচ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। যাহার নং-০৪ তারিখ-০৪/০৪/১৯, ধারা যথাক্রমে-১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩২৪/৩২৫/৩২৬/৩০৭/৩৫৪/৩৭৯/৪২/১১৪/৫০৬। এ মামলার আসামী নেয়ামত উল্লাহ জানান, তিনি নৌকা মার্কার সমর্থক ছিলেন। নির্বাচনী সমর্থন নিয়ে উভয়ের মাঝে সংঘর্ষ বাধে। এতে তার দুই ছেলে নুরুজ্জামান (২৮) ও মনির হোসেন প্রতিপক্ষের হামলার শিকার হয়ে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে চিকিসৎসাধীন রয়েছে। নেয়ামত উল্লাহ বাদী হয়েও একটি মামলা দায়ের করেন মাধবদী থানায়।
এদিকে গত বুধবার (৩ এপ্রিল) কাঠালিয়া ইউনিয়নে নির্বাচনে আনারস মার্কার সমর্থক ডৌকাদী গ্রামের মৃত: আকবর হোসেন এর ছেলে আলী হোসেন আলীকে মারধর করেছে নৌকার সমর্থক স্থানীয় ইউপি সদস্য নুর ইসলাম। ইউপি সদস্য নুর ইসলাম প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেন আলী হোসেনকে বলে জানান তিনি।
এর আগে নির্বাচনের দিন বাড়ি ফেরার পথে পুর্ব শত্রুতার জের ধরে হামলার শিকার হয়ে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে মহিষাশুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মিলন মিয়া। সে একই ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড বালুসাইর আলগাপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। এ হামলার ঘটনায় ২৯ জনকে আসামী করে মাধবদী থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে জানান পুলিশ।

66 total views, 3 views today

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here