গ্রামীণ দর্পণ ডেস্ক: এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে চলচ্চিত্রের জন্য সরকারি অনুদানপ্রাপ্তদের তালিকা ঘোষণা করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়। ২৪ এপ্রিল গত বুধবার ২০১৮-১৯ অর্থবছরে এবার ৮ জনকে চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য অনুদান দেয়া হচ্ছে বলে উক্ত প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়।

এরপর অনুদানের জন্য অসংখ্য চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্য জমা পড়ে। অবশেষে যাচাই-বাছাই শেষে পূর্ণদৈর্ঘ্য, শিশুতোষ ও প্রামাণ্যচিত্র মিলিয়ে এবার মোট ৮টি চলচ্চিত্র নির্বাচিত করা হয়েছে।

প্রখ্যাত অভিনেত্রী ও নির্মাতা সারাহ বেগম কবরীর নাম এই ছবিগুলোর নির্মাতার তালিকায় রয়েছে। ‘এই তুমি সেই তুমি’ নামের চলচ্চিত্রের জন্য অনুদান পেয়েছেন তিনি।

এবারের অনুদানপ্রাপ্ত বাকি’রা হলেন, হূদি হক ‘১৯৭১ সেইসব দিন’, মীর সাব্বির ‘রাত জাগা ফুল’, হোসেন মোবারক রুমী ‘অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া’ ও আকরাম খান ‘বিধবাদের কথা’। এবার অনুদান দেয়া হয়েছে একটি পূর্ণদৈর্ঘ্য শিশুতোষ চলচ্চিত্রের জন্যও। আবু রায়হান মো. জুয়েল অনুদান পেয়েছেন ‘নসু ডাকাত কুপোকাত’ নামের চলচ্চিত্রের জন্য। এ ছাড়া পূরবী মতিনের ‘মেলাঘর’ ও হুমায়রা বিলকিসের ‘বিলকিস এবং বিলকিস’ দুটি প্রামাণ্যচিত্রও অনুদান পেয়েছে।

এবারের প্রথম অনুদানপ্রাপ্ত নির্মাতা মীর সাব্বির ও হূদি হক জানান, সরকারের অনুদানে নির্মাণ করতে পারছি ‘নিজের চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় প্রথম ছবি। দর্শকদের একটি ভালো গল্পের ছবি উপহার দিতে পারব আশা করছি। আর এটা আমার জন্য এক অনণ্য পাওয়া। ভীষণ ভালো লাগছে জানান হূদি হক। এটা নি:সন্দেহে একজন চলচ্চিত্র নির্মাতার জন্য অত্যন্ত আনন্দ সংবাদ।

‘১৯৭১ সেইসব দিন’, ‘অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া’ ও ‘এই তুমি সেই তুমি’ এই তিনটি ছবি পাচ্ছে ৫০ লাখ টাকা করে। আর প্রামাণ্য চিত্রের জন্য দেয়া হয়েছে ৩০ লাখ টাকা।’ সরকারি অনুদান হিসেবে ‘নসু ডাকাত কুপোকাত’, ‘বিধবাদের কথা’ ও ‘রাত জাগা ফুল’ প্রতিটি ছবি পাবে ৬০ লাখ টাকা করে।

১৯৭৬-৭৭ অর্থবছর থেকে দেশীয় চলচ্চিত্রে সরকারি অনুদানের প্রথা চালু করা হয়। এরপর থেকে প্রতি বছরই সরকারি অনুদানে সিনেমা নির্মিত হয়ে আসছে।

213 total views, 3 views today