1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
February 28, 2024, 1:15 pm
সর্বশেষ সংবাদ
রায়পুরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাক্তারের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যু নরসিংদীতে ২ ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে জরিমানা নরসিংদীতে” শিক্ষার্থীদের মাঝে সততা চর্চা ও সততার অভ্যাস গড়ে তোলার লক্ষ্যে দুর্নীতি বিরোধী জনসচেতনতা সভা শর্ট বাউন্ডারি ক্রিকেট টুর্ণামেন্টে কান্দাইল বন্ধু মহল একাদশের বিজয় মনোহরদী পৌরসভা মেয়রের সাথে ইমাম মোয়াজ্জিনদের মতবিনিময় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ১০ নির্দেশনা বায়বায়নে বেসরকারি হাসপাতালে অভিযান মূল্যস্ফীতি কমবে মে-জুনে সাবধান, বাজারে আসছে ‘গণধোলাই’ নরসিংদীর মডেল ক্যাডেট কেয়ার থেকে ৯ শিক্ষার্থী ক্যাডেটে ভর্তির লিখিত পরীক্ষায় চান্স রায়পুরায় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত

তরুণ প্রজন্মের জন্য প্রণোদনা খাত রাখার দাবি জানিয়েছেন মোঃ আজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন

প্রতিবেদকের নাম
  • পোস্টের সময় Wednesday, June 24, 2020
  • 420 বার দেখা হয়েছে

প্রেস বিজ্ঞপ্তি: ভাষা আন্দোলনে ও আইয়ুব বিরোধী আন্দোলনে নেতৃত্ব দিয়েছিল,দেশের মুক্তিযুদ্ধে বন্দুক হাতে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল,১৯৭৪ সালের দুর্ভিক্ষে মানুষের দ্বারে দ্বারে সাহায্য পৌঁছে দিয়েছিল,১৯৮৮ এর বন্যায় ত্রাণ কাজ পরিচালনা করেছিল, ৭১’র যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির দাবিতে দেশজুড়ে আকাশ-বাতাস কাঁপিয়েছিল, দেশের বন্যা-খরায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে, করোনা সম্পর্কে মানুষের সচেতনতা বাড়ানোর জন্য পাড়ায়-পাড়ায় কাজ করেছে এবং সবশেষে আম্পানের প্রবল ঝড়ে বিধ্বস্ত প্রান্তিক মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে কারা? -এরা তারাই, যাদেরকে নিয়ে কবি হেলাল হাফিজ লিখেছেন,এখন যৌবন যার, যুদ্ধে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময়।
জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জাতীয় স্বেচ্ছাসেবক পার্টি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ এর সভাপতি মোঃ আজিজুল হুদা চৌধুরী সুমন কথা বলছেন আমাদের সেই তরুণ প্রজন্ম কে নিয়ে।
অথচ আমাদের এখন ভয় এই তরুণ প্রজন্মকে নিয়েই। কারণ, আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) বলেছে,এই মহামারি বাংলাদেশের কর্ম-উপযোগী যুব সম্প্রদায়ের জন্য একটি বড় ধাক্কা। যুবকদের চাকরির সুয়োগ বহুগুণ হ্রাস পেয়েছে এবং আরও পাবে। যেসব নারীকর্মী কম বেতন পান এবং অনানুষ্ঠানিক খাতে কাজ করছেন, তারাই সবচেয়ে বিপদে পড়েছেন এই সময়।
আইএলও আরও জানিয়েছে দেশের চার ভাগের মধ্যে এক ভাগেরও বেশি অর্থাৎ ২৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ যুবক কোনো কাজে,শিক্ষায় ও প্রশিক্ষণের সঙ্গে জড়িত নন। জনসংখ্যার ৬০ শতাংশের বয়স কাজ করার মতো এবং এদের মধ্যে শতকরা ৩ দশমিক ২৪ কোটি শ্রমিকের বয়স ১৫ থেকে ২৯ বছর।
আমরা যখন আমাদের এই ব্যাপক সংখ্যক জনশক্তিকে কোন কাজ দিতে পারবো না তখন এই শক্তি পরিণত হবে আপদে। বেকারত্ব, অভাব আর দারিদ্র তাদের মধ্যে হতাশা তৈরি করবে।যুবকরা কাজ করতে চায়, আয় করতে চায়, জীবনে দাঁড়াতে চায়।
গত কয়েক বছর যাবৎ যুব সম্প্রদায় শুধু চাকরি নয়, নানা ধরণের ব্যবসায়িক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এদেশের যুবকদের নতুন শ্লোগান ছিল ‘চাকরি করবো না, চাকরি দিবো। কিন্তু, এখন এই মহামারি ছেলেমেয়েগুলোকে স্থবির করে দেবে।
তাই সরকারের কাছে আমার দাবি তরুণ প্রজন্মের জন্য প্রণোদনা খাতের ব্যবস্থা করুন। যেখান থেকে ঋণ নিয়ে তারা আবার নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন