1. grameendarpan@gmail.com : admi2017 :
সোমবার, ০৩ অগাস্ট ২০২০, ০৫:৩৩ অপরাহ্ন

পলাশে করোনা পরীক্ষায় আগ্রহী রোগীদের হয়রানি বন্ধে ইউএনও’র মানবিক উদ্যোগ

পলাশ প্রতিনিধি
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৪ জুলাই, ২০২০
  • ৩৬ বার

আল-আমিন মিয়া, পলাশ প্রতিনিধি: সারাদেশের ন্যায় নরসিংদীর পলাশেও দৈনিক করোনাভাইরাস পরীক্ষার সংখ্যা বাড়ছে, আক্রান্ত শনাক্তের সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ বাড়লেও এখনো চাহিদার তুলনায় পরীক্ষা হচ্ছে নিতান্তই কম। প্রতিদিনই করোনাভাইরাস পরীক্ষায় আগ্রহী মানুষকে নানাভাবে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে। দিনের পর দিন ঘুরে, ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করে, জানা-অজানা সংক্রমিত-অসংক্রমিতদের ভিড়ে মিশেও বেশির ভাগ মানুষ পরীক্ষা করাতে পারছে না। অনেক ক্ষেত্রে করোনা পরীক্ষার জন্য কিট থাকলেও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টেকনিশিয়ানের অভাবে করোনা পরীক্ষা করাতে আসা আগ্রহী রোগীদের নমুনা সংগ্রহ না করানোর অভিযোগও করেছিলেন অনেক রোগী। এ অবস্থায় রোগীদের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ও করোনা পরীক্ষা করাতে আসা আগ্রহী রোগীদের সেবা নিশ্চিতকরণে মানবিক উদ্যোগ গ্রহণ করেছে পলাশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা ইয়াসমিন। তিনি ব্যক্তিগত উদ্যোগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য দুই জন টেকনিশিয়ান (টেকনোলজিস্ট) নিয়োগ দিয়েছেন। এছাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে সেবা নিতে আসা বিভিন্ন রোগীদের নানাবিধ হয়রানি বন্ধে সার্বক্ষণিক তদারকি করছেন ইউএনও রুমানা ইয়াসমিন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, দেশে করোনা সংকট দেখা দেওয়ার পর প্রথম দিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টেকনোলজিস্ট এর পাশাপাশি উপজেলার বিভিন্ন কমিউনিটি ক্লিনিকের সদস্যরা করোনা পরীক্ষায় আগ্রহী রোগীদের নমুনা সংগ্রহ কাজে সহায়তা করতেন। কিন্তু হঠাৎ করেই কমিউনিটি ক্লিনিকের সদস্যরা নমুনা সংগ্রহের কাজে সহায়তা করা বন্ধ করে দেয়। ফলে করোনা পরীক্ষায় আগ্রহী রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করতে গিয়ে অনেকটা বিপাকে পড়তে হয়। আর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একমাত্র টেকনোলজিস্ট দিলিপ কুমার দাসও শারীরিক অসুস্থতায় থাকার কারণে করোনা পরীক্ষায় আগ্রহী রোগীরা নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছিল। এ অবস্থায় বিষয়গুলো জানতে পেরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা ইয়াসমিন ব্যক্তিগত ভাবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য দুইজন টেকনোলজিস্ট নিয়োগ করেন। যাদের বেতন-ভাতা বহন করবেন উপজেলা প্রশাসনের এ কর্মকর্তা। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা ইয়াসমিনের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, দেশে করোনা সংকটের এই সময়ে সব থেকে বেশি জরুরি মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা। যে কারণে বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাস্থ্য বিভাগে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় নরসিংদীর জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন এর সার্বিক দিকনির্দেশনায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে শতভাগ স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিতকরণ লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। যেনো একজন মানুষও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে সেবা নিতে এসে কোনো প্রকার হয়রানির শিকার না হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..