1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
February 23, 2024, 6:11 pm
সর্বশেষ সংবাদ
শ্রীপুরে মহাসড়কের পাশের সাড়ে ৩ হাজার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ট্রাব অ্যাওয়ার্ড পেলেন পরিচালক পলাশ মণি দাস নরসিংদীতে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় অজ্ঞাত এক নারী নিহত পাঁচদোনা কেন্দ্রে নকলমুক্ত পরিবেশে এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত মনোহরদীতে কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় মোটর সাইকেল আরোহী নিহত সাস নরসিংদীর বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয় গাঁজীপুরের গভীর বনে নক্ষত্রবাড়ী রিসোর্টে ভেজাল খাবার বিক্রেতাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে হবে -আসমা সুলতানা নাসরীন বই মেলায় পাওয়া যাচ্ছে নূরুল ইসলাম নূরচানের তিন বই বেলাবতে কৃষি ব্যাংক কর্তৃক গ্রাহকদের সাথে মতবিনিমিয় সভা অনুষ্ঠিত মাধবদীতে ১৩ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন কার্যকর

গ্রামীণ দর্পণ ডেস্ক
  • পোস্টের সময় Monday, July 20, 2020
  • 384 বার দেখা হয়েছে

গ্রামীণ দর্পণ ডেস্ক: অক্সফোর্ডের করোনা ভ্যাকসিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সক্ষম বলে দাবি করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। প্রতিষ্ঠানটির দাবি মানবদেহের জন্যও নিরাপদ এই টিকা। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, আজ সোমবার অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির তৈরি ভ্যাকসিনটির পরীক্ষামূলক প্রয়োগের অগ্রিম ফলাফল প্রকাশ করা হয়। বলা হচ্ছে, প্রাথমিকভাবে ১ হাজার ৭৭ জন মানুষের ওপর ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করা হয়। ইনজেকশনের মাধ্যমে ভ্যাকসিনটি মানবদেহে প্রয়োগ করা হয়। তাতে দেখা গেছে ভ্যাকসিনটি নতুন করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে মানবদেহের রোগ প্রতিরোধক্ষমতাকে উপযুক্ত করে তুলতে সহায়তা করে। একই সঙ্গে তৈরি করে প্রয়োজনীয় অ্যান্টিবডি ও শ্বেত রক্তকণিকা, যা নতুন করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সক্ষম।

১৮ থেকে ৫৫ বছরের বয়সী প্রায় ১১শো জন্যের শরীরে এই টিকা প্রয়োগ করা হয়। এতে দেখা যায়, করোনা মোকাবিলায় অ্যান্টিবডি এবং টি-সেলস গঠনে সক্ষম এই ভ্যাকসিন। পরবর্তীতে ১০ হাজারের বেশি ব্রিটিশ নাগরিকের ওপর ভ্যাকসিনের পরীক্ষা করার কথা জানিয়েছে অক্সফোর্ড কর্তৃপক্ষ। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে ৩০ হাজার, সাউথ আফ্রিকায় ২ হাজার এবং ব্রাজিলে ৫ হাজার মানুষের ওপর ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করা হবে। ব্রিটিশ কোম্পানি অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে যৌথভাবে ভ্যাকসিন তৈরির কাজ করছে অক্সফোর্ড। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে ৩০ হাজার ও ব্রাজিলে ২ হাজার স্বেচ্ছাসেবীকে ভ্যাকসিনটি দেয়া হবে। এরইমধ্যে ভ্যাকসিনটির একশ মিলিয়ন ডোজ অর্ডার করেছে যুক্তরাজ্য।

সংশ্লিষ্ট গবেষকেরা বলছেন, প্রাথমিকভাবে যে ফলাফল পাওয়া গেছে, তার ভিত্তিতে বলা যায় যে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনটির সম্ভাবনা অনেক বেশি। তবে সম্পূর্ণ ফল পেতে এবং মানবদেহে এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হলে আরও অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষার প্রয়োজন আছে।

প্রথম ধাপের ফল আজ প্রকাশিত হলেও অক্সফোর্ডের এই ভ্যাকসিনটির তৃতীয় বা চূড়ান্ত পর্যায়ের পরীক্ষার জন্য যুক্তরাষ্ট্র, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ব্রাজিলে ৪২ হাজার স্বেচ্ছাসেবীর দেহে পরীক্ষার ফল পেতে আরো অপেক্ষা করতে হবে।

ব্রিটিশ ফার্মাসিউটিক্যালস জায়ান্ট অ্যাস্ট্রাজেনেকার সঙ্গে যৌথভাবে এ ভ্যাকসিন তৈরি করেছে অক্সফোর্ড। অ্যাস্ট্রাজেনেকা বলেছে, চলতি বছরের শেষ দিকে ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতার ব্যাপারে তারা চূড়ান্ত তথ্য-উপাত্ত পাবেন বলে আশা করছেন। শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যাজনিত কোভিড-১৯ রোগের বিরুদ্ধে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনটিকে দ্বৈত প্রতিরক্ষা হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে।

চ্যাডক্স১ এনকোভ-১৯ নামের এই ভ্যাকসিনটি নজিরবিহীন গতিতে তৈরি করেছেন অক্সফোর্ডের বিজ্ঞানীরা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন