1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
February 28, 2024, 12:38 pm
সর্বশেষ সংবাদ
রায়পুরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাক্তারের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যু নরসিংদীতে ২ ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে জরিমানা নরসিংদীতে” শিক্ষার্থীদের মাঝে সততা চর্চা ও সততার অভ্যাস গড়ে তোলার লক্ষ্যে দুর্নীতি বিরোধী জনসচেতনতা সভা শর্ট বাউন্ডারি ক্রিকেট টুর্ণামেন্টে কান্দাইল বন্ধু মহল একাদশের বিজয় মনোহরদী পৌরসভা মেয়রের সাথে ইমাম মোয়াজ্জিনদের মতবিনিময় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ১০ নির্দেশনা বায়বায়নে বেসরকারি হাসপাতালে অভিযান মূল্যস্ফীতি কমবে মে-জুনে সাবধান, বাজারে আসছে ‘গণধোলাই’ নরসিংদীর মডেল ক্যাডেট কেয়ার থেকে ৯ শিক্ষার্থী ক্যাডেটে ভর্তির লিখিত পরীক্ষায় চান্স রায়পুরায় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত

জেলা প্রশাসন নরসিংদীর হস্তক্ষেপে বাল্যবিবাহ থেকে রক্ষা পেল বালক-বালিকা

স্টাফ রিপোর্টার
  • পোস্টের সময় Thursday, July 23, 2020
  • 411 বার দেখা হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার: বিবাহ একটি ধর্মীয়, সামাজিক ও সরকার স্বীকৃত প্রথা। তবে বাল্যবিবাহ একটি ফৌজদারি ও সামাজিক অপরাধ। বাল্যবিবাহের কুফল দীর্ঘমেয়াদী। একদা দেশে বাল্যবিবাহ ছিলো নিত্তনৈমিত্তিক ঘটনা। তখন মাতৃমৃত্যু, শিশুমৃত্যু ও নারী নির্যাতনের হার ছিলো ভয়াবহ। পরবর্তীতে প্রশাসনের কঠোর নজরদারি আর আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার কারণে বাল্যবিবাহের হার হ্রাস পেতে থাকে এদেশে। ফলে সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এমডিজি) এবং টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) অর্জনে বাংলাদেশ প্রত্যাশিত সফলতা লাভ করতে থাকে।
নরসিংদীর জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন এর দূরদৃষ্টির কারণে নরসিংদী জেলায় বাল্যবিবাহ রোধে তৈরি হয়েছে ত্রিমাত্রিক প্রতিরোধ ব্যবস্থা। প্রশাসনের নেতৃত্বে সামাজিক সংগঠন ও জনপ্রতিনিধিদের সমন্বিত সহযোগিতায় জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলেও বাল্যবিবাহ রোধে চলমান আছে কঠোর নজরদারি।
নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নং ওয়ার্ডের মোঃ সুলমান মিয়ার অপ্রাপ্ত বয়স্কা কন্যার সাথে শিবপুর উপজেলার আইয়ুবপুর ইউনিয়নের মোঃ রফিকুল ইসলাম এর অপ্রাপ্ত বয়স্ক পুত্রের বাল্যবিবাহের ঘটনা সংক্রান্ত অভিযোগের প্রেক্ষিতে ২০ জুলাই সোমবার বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ২০১৭ অনুযায়ী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়।
এ সময়ে আদালতের সম্মুখে উক্ত আইনের ৮ ধারার অপরাধ উদঘাটিত হওয়ায় বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সাখাওয়াত জামিল সৈকত অপরাধ স্বীকার করা অভিভাবককে অর্থদন্ড প্রদান করেন। এ সময় চিনিশপুর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড মেম্বার মোঃ মুরাদ হোসেন এবং আইয়ুবপুর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বার বাদল ভূইয়া উপস্থিত ছিলেন। বাল্যবিবাহ রোধে জেলা প্রশাসনের কর্মকান্ড অব্যাহত আছে ও থাকবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন