স্টাফ রিপোর্টার: নরসিংদীর মনোহরদীতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে বৈশাখী মেলা ও বর্ষবরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শনিবার বাংলা নববর্ষ-১৪২৫ বরণ করে নেয়া হয়। মনোহরদী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে পুরনো বছরের সকল ব্যর্থতার গ্লানি মুছে ফেলে নতুন বছরকে বরণ করতে মঙ্গল শোভাযাত্রায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ শহিদ উল্লাহ’র নেতৃত্বে মনোহরদীর পৌর মেয়র আমিনুর রশিদ সুজন, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আসসাদিক জামান, মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা, শিশু ও কিশোর অংশগ্রহণ করেন। সকাল ১০টায় মঙ্গল শোভাযাত্রাটি মনোহরদীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে মনোহরদী ডিগ্রি কলেজ মাঠে গিয়ে শেষ হয়।


মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ শহিদ উল্লাহ’র সভাপতিত্বে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব এড. নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন। এছাড়াও মনোহরদী উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপস্থিত সকলকে আপ্যায়িত করা হয়। এ সময় উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক ও পুলিশ বিভাগ অংশগ্রহণ করেন।
স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি কলেজ মাঠে গ্রামীণ খেলাধূলা, চড়কী, নাগড়দোলা ইত্যাদি ছিল চোখে পড়ার মতো। শনিবার উপজেলা শহর ঘুরে দেখা যায়, পুরো পৌর এলাকায় বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। কলেজ মাঠে চলছে বৈশাখী মেলা। মেলায় রংবেরঙের পোশাক পরে হাজারো নারী পুরুষ ও শিশু কিশোরদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। মেলা প্রাঙ্গণে শিশু শিল্পীদের কণ্ঠে “এসো হে বৈশাখ এসো এসো” গানে মুখরিত হয় পুরো এলাকা। উল্লেখ্য, শনিবার বিকেলে উপজেলার খিদিরপুর, লেবুতলা, চরমান্দালিয়া, কৃষ্ণপুর, বড়চাপা ও চালাকচর ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামে ভয়াবহ শিলাবৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এ সময় পুরো উপজেলায় ব্যাপক বৃষ্টিপাত হয়। শিলাবৃষ্টিতে বোরো ফসল, আম, জাম, লিচু, পানবরজ, কাঁঠালসহ বিভিন্ন ফলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এতে করে ফসল ও ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। এই ব্যাপক শিলা বৃ্ষ্িটতে ৬টি ইউনিয়নে ৫ হাজার হেক্টর ফসলি ধানের জমির মধ্যে ৮শত ৫০ হেক্টর, ৩’শ ১০ হেক্টর কলা বাগানের মধ্যে ৪০ হেক্টর, ১’শ ৩০ হেক্টর সবজি ক্ষেতের ৫৪ হেক্টর ও ১’শ ৬০ হেক্টর পান বরজের মধ্যে ২৫ হেক্টর পানবরজের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তাই বিকেলের দিকে মেলায় দর্শনার্থীর উপস্থিতি কমে যায়।

482 total views, 9 views today