গ্রামীণ দর্পণ ডেস্ক: নরসিংদীর রায়পুরায় মুখোশধারী দুর্বৃত্তদের হামলায় মো. সাহাদত হোসেন দুলাল নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। তিনি উপজেলার উত্তর বাখন নগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি মৃত গাজী আব্দুল মান্নানের ছেলে। বুধবার সন্ধ্যায় রায়পুরা উপজেলার লোচনপুর মজিদ মিয়ার মোড়ে বাদল ডাক্তারের ফার্মেসিতে এ ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নিহত দুলাল বুধবার বাদল ডাক্তারের ঔষধের ফার্মেসিতে বসে ছিলেন। এ সময় সিএনজিযোগে ৭-৮ জন মুখোশধারী দুর্বৃত্ত এসে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে কুপিয়ে পালিয়ে যায়। দুর্বৃত্তরা নিহতের মাথায় ও কাঁধে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় দুলালকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানেই তার মৃত্যু হয়।
নিহতের বড় ভাই মো. জাহাঙ্গীর আলম কাজল জানান, দুলাল ঢাকার শেওড়াপাড়ায় পরিবাব নিয়ে থাকতেন। ওই খানে সে একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে ইলেকট্রিশিয়ানের কাজ করত। তার বাবা ৪০ দিন পূর্বে বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যায়। মঙ্গলবার পিতার কুলখানির আয়োজন করার জন্য স্ব-পরিবারে গ্রামের বাড়িতে আসেন। বুধবার সন্ধ্যার আগে কুলখানির দাওয়াত দিতে বাড়ি থেকে বের হন। তারপর সন্ধ্যা পৌনে ৭ টার দিকে মুখোশধারী দুর্বৃত্তদের ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার মুত্যু হয়। এই ঘটনায় পরিবারটি এখনো থানায় মামলা দায়ের করেনি। ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।
প্রতিবেশীরা জানান, গত নিবার্চনকে কেন্দ্র করে বিএনপিপন্থী একই এলাকার বিপ্লবের সাথে দুলালের ঝামেলা বাধে। আর সেই ঘটনার জের ধরেই বিপ্লব ও তাঁর সহযোগীরা দুলালকে হত্যা করতে পারে বলে ধারণা পরিবারের। পিতার মৃত্যুর ৪০ দিন না কাটতেই দুর্বৃত্তদের হাতে ছেলে খুন হওয়ার ঘটনায় পরিবারে চলছে শোকের মাতম।
রায়পুরা থানার অফিসার ইনচার্জ মহসিনুল কাদির বলেন, এখন পর্যন্ত নিহত পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা করা হয়নি। মামলার পর তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

414 total views, 3 views today