সাংবিধানিক স্থিতিশীলতা নিশ্চিতে ভূমিকা পালন করুন: সশস্ত্র বাহিনীকে প্রধানমন্ত্রী

0
53

গ্রামীণ দর্পণ ডেক্সঃ- দেশের অগ্রগতির পাশাপাশি গণতন্ত্র ও সাংবিধানিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে যথাযথ ভূমিকা পালন করতে সশস্ত্র বাহিনীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, জাতিসংঘ মিশনে বিভিন্ন দেশে শান্তি রক্ষায় বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। দেশ ও জাতির কল্যাণে এবং গণতন্ত্র ও সাংবিধানিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে। যাতে আমরা দেশের উন্নয়নের চলমান ধারা অব্যাহত রাখতে পারি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর মিরপুর ক্যান্টনমেন্টের শেখ হাসিনা কমপ্লেক্সে সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজ (ডিএসসিএসসি) ২০১৮-২০১৯ এর গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এসব বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, সশস্ত্র বাহিনী সততা ও পেশাদার দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে বহির্বিশ্বে সুনাম ও খ্যাতি অর্জন করেছেন।

সশস্ত্র বাহিনীকে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের ‘প্রতীক’ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের সার্বভৌমত্ব রক্ষার মহান দায়িত্বের পাশাপাশি আমাদের দেশপ্রেমিক সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা যেকোন সংকট ও দুর্যোগ মোকাবেলা, অবকাঠামো নির্মাণ, আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখছেন।

তিনি ডিএসসিএসসি ২০১৮-২০১৯ কোর্সের সকল গ্র্যাজুয়েডদের আন্তরিক অভিনন্দন জানান এবং তাদের পেশাদার, সামাজিক ও পারিবারিক জীবনে সাফল্য কামনা করেন।
গ্র্যাজুয়েটিং কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই কোর্স আপনাদের অর্পিত দায়িত্ব দক্ষতার সাথে পালনে এবং যেকোন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আরও বেশি আত্মবিশ্বাসী করবে। আপনারা সকলে এখন উচ্চপর্যায়ের নেতৃত্ব গ্রহণ করতে প্রস্তুত।’

এ বছর মোট ১১ জন নারী কর্মকর্তা গ্র্যাজুয়েশন সম্পন্ন করেছেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিবছর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক নারী কর্মকর্তার কোর্সে অংশগ্রহণ অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক। আমি, আশা করি ভবিষ্যতে নারী কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণ আরও বৃদ্ধি পাবে।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কলেজের কমান্ড্যান্ট মেজর জেনারেল মো. এনায়েত উল্লাহ।

এ বছর স্টাফ কলেজ থেকে মোট ২১৫ জন কর্মকর্তা গ্র্যাজুয়েশন অর্জন করেছেন। তাদের মধ্যে সেনাবাহিনীর ১১৮ জন কর্মকর্তা, নৌবাহিনীর ২৯ জন কর্মকর্তা এবং বিমান বাহিনীর ২৩ জন কর্মকর্তাসহ এবং বিশ্বের ১৯টি দেশের ৪৫ জন বিদেশি কর্মকর্তা রয়েছেন। ১৯ টি দেশের মধ্যে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, চীন, ভারত, ফিলিপাইন, সৌদি আরব, ইন্দোনেশিয়া, মালয়েশিয়া, নেপাল, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা।
প্রধানমন্ত্রী গ্র্যাজুয়েট কর্মকর্তাদের মধ্যে সার্টিফিকেট বিতরণ করেন।

সূত্রঃ- ইউএনবি

159 total views, 3 views today

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here