1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
March 1, 2024, 7:41 pm
সর্বশেষ সংবাদ
বিজিএমইএ নির্বাচনের জন্য ২৫ দফার ইশতেহার ঘোষণা ফোরাম প্যানেলের পোশাকশিল্পের জন্য আলাদা মন্ত্রণালয় চায় ফোরাম নয়াচরে ৫৬ বছর ধরে আলো ছড়াচ্ছে মাওলানা অছিউদ্দীনের পাঠাগার রায়পুরায়  জমি সংক্রান্ত বিরোধে বাড়ীতে হামলা ভাঙচুর লুটপাট পেট্রোল দিয়ে অগ্নিদগ্ধের ঘটনায় প্রাক্তন স্বামীর মৃত্যুর দুই দিন পর চিকিৎসক স্ত্রী লতার মৃত্যু নরসিংদীতে র‌্যালী ও আলোচনাসভার মধ্য দিয়ে জাতীয় বীমা দিবস পালিত বেলাব থানার ওসি পেলেন ‘রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক’ হাজী আবেদ আলী কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত সুস্থ দেহ সুন্দর মনের অধিকারী হতে হলে খেলাধুলার বিকল্প নেই -জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাস নরসিংদীর আয়োজনে বসন্তবরণ ও বৈজ্ঞানিক সেমিনার অনুষ্ঠিত নতুন ডাক্তারদেরকে কনভেশনাল সার্জারীর পাশাপাশি ল্যাপারোস্কোপিক ও রোবটিক সার্জারীর জ্ঞান ও রপ্ত করতে হবে -ডা. সুবিনয় কৃষ্ণ পাল স্বাধীন অর্থনীতি র‍্যাংকিং এ সাত ধাপ উন্নতি বাংলাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় ১২টি এক্সপ্রেসওয়ে যুক্ত করার মহাপরিকল্পনা

করোনায় চীনা বিশেষজ্ঞ দলের শঙ্কা

প্রতিবেদকের নাম
  • পোস্টের সময় Monday, June 22, 2020
  • 398 বার দেখা হয়েছে

গ্রামীণ দর্পণ ডেস্ক: রোববার (২১ জুন) ডিপ্লোম্যাটিক করেসপন্ডেট অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ডিক্যাব) সঙ্গে এক ভার্চুয়াল আলোচনায় চীনের বিশেষজ্ঞরা বলেন “বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ এখনও চূড়ায় পৌঁছেনি, কবে পৌঁছবে তাও বলা কঠিন। পরিস্থিতি মোকাবিলায় অবশ্যই পরিকল্পিত ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে লকডাউন করত হবে। এদেশে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতার খুবই অভাব।” এটা দেখে চীনা চিকিৎসকদের বিশেষজ্ঞ দল ভীষণ হতাশ। বিশেষজ্ঞ দলের পক্ষে কথা বলেন ঢাকায় চীনা দূতাবাসের ডেপুটি চিফ অব মিশন ইয়ান হুয়ালং। অংশ নেন বিশেষজ্ঞ দলের ডা. শুমিং শিয়ানউ ও ডা. লিউহাইট্যাং।

তারা বলছেন, এদেশে চিকিৎসকসহ চিকিৎসাকর্মীর সংখ্যাও খুবই কম। তবু স্বল্পসংখ্যক জনবল নিয়ে তারা অসাধারণ কাজ করে যাচ্ছেন বলে মনে করে বিশেষজ্ঞ দল। করোনা পরিস্থিতির স্থায়িত্বকাল নিয়ে এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ এখনো চূড়ান্ত পর্যায়ে (পিক টাইম) পৌঁছেনি, কবে পৌঁছাবে তা-ও বলা কঠিন। পরিস্থিতি মোকাবিলায় অবশ্যই পরিকল্পিত ও বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে লকডাউন করতে হবে। এই পরিস্থিতি আরও ২-৩ বছর চলবে কি-না সেটা বলার মতো বৈজ্ঞানিক তথ্য বিশেষজ্ঞদের জানা নেই। ইয়ান হুয়ালং বলেন, দুই সপ্তাহ ধরে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে দেখেছেন এই বিশেষজ্ঞরা। তারা সরকারের উচ্চপর্যায়ের কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেছেন।

করোনা শনাক্তে র‌্যাপিড ডট কিটের মাধ্যমে পরীক্ষা সমর্থন করেন না চীনা বিশেষজ্ঞরা। করোনা আক্রান্ত শনাক্তে নমুনা পরীক্ষা কম হচ্ছে বলে পর্যবেক্ষণ জানিয়ে বিশেষজ্ঞ দলটির পক্ষ থেকে বলা হয়, এখনো বাংলাদেশে করোনা টেস্টের পরিমাণ খুবই কম। দেশের সব বিভাগে ল্যাবরেটরিও নেই। সেজন্য অনেককে তাদের টেস্টের জন্য ঢাকায় নমুনা পাঠাতে হয়। বেশি বেশি নমুনা পরীক্ষার ওপর জোর দিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলেন, দ্রুত পরীক্ষা, দ্রুত শনাক্তকরণ, দ্রুত আইসোলেশন এবং দ্রুত চিকিৎসা এখন খুব গুরুত্বপূর্ণ। সন্দেহজনক কেস থেকে সর্বস্তরে টেস্ট নিশ্চিত করতে হবে। তিনটি উপায়ে করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।

আক্রান্তদের চিকিৎসা, এই ভাইরাসের ট্রান্সমিশন (একজন থেকে আরেকজনে ছড়ানো) বন্ধ করা এবং যারা আক্রান্ত হননি তাদের রক্ষা করা।এই পরিস্থিতি আরও ২/৩ বছর চলবে কি না সেটা বলার মত বৈজ্ঞানিক তথ্য তাদের জানা নেই। করোনা শনাক্তে রেপিড ডট কিটের পরীক্ষা সমর্থন করেন না চীনা বিশেষজ্ঞরা। দুই সপ্তাহের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে এই সপ্তাহেই স্বাস্থ্য অধিদফতরের কাছে পরামর্শ আকারে বিশেষজ্ঞ রিপোর্ট হস্তান্তর করা হবে।করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় বাংলাদেশকে সহযোগিতার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দলটি গত ৮ জুন ঢাকায় আসে।

ডা. লি ওয়েনশিউর নেতৃত্বাধীন প্রতিনিধি দলে চিকিৎসক, নার্সসহ সংক্রামক ব্যাধি নিরোধ বিশেষজ্ঞরা রয়েছেন।সফর শেষ করে সোমবার (২২ জুন) দেশে ফিরে যাবে বিশেষজ্ঞ দলটি। তবে যাওয়ার আগে দুই সপ্তাহের অভিজ্ঞতা এবং এ সংক্রান্ত পরামর্শ এক করে রিপোর্ট আকারে স্বাস্থ্য অধিদফতরে দেবে তারা। বিশেষজ্ঞরা চলে গেলেও বাংলাদেশের জন্য চীনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে তারা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন