1. grameendarpan@gmail.com : admi2017 :
মঙ্গলবার, ২০ জুলাই ২০২১, ০৩:০৬ পূর্বাহ্ন

সেজান জুস ফ্যাক্টরিতে অগ্নি দূর্ঘটনায় হতাহত ও ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে র‌্যাবের মানবিক সহায়তা প্রদান

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৫ জুলাই, ২০২১
  • ৭ বার

ডেস্ক রিপোর্ট: র‌্যাব-১১ নারায়নগঞ্জের পক্ষ থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানাধীন কর্ণগোপ এলাকার ‘হাসেম ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানি সেজান জুস কারখানার অগ্নিকান্ডে নিহত ও ক্ষতিগ্রস্থ ৫০০ পরিবারের মাঝে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে মানবিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। হাসেম ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানি সেজান জুস কারখানার অগ্নি দূর্ঘটনায় নিহত ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের সাথে ঈদ-উল-আযহা’র আনন্দ ভাগাভাগি করে নেওয়ার জন্য র‌্যাব মহাপরিচালক ১৫ জুলাই বিকাল ০৩:০০ ঘটিকায় ভূলতা স্কুল এন্ড কলেজ রূপগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ এর মাঠে মানবিক সহায়তা প্রদান করেন। র‌্যাব-১১,আদমজীনগর, নারায়ণগঞ্জ এর মিডিয়া অফিসার লেঃ কমাঃ মাহমুদুল হাসান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।


গত ০৮ জুলাই বিকালে নারায়ণগঞ্জ জেলার রূপগঞ্জ থানাধীন কর্ণগোপ এলাকার ‘হাসেম ফুড এন্ড বেভারেজ কোম্পানি সেজান জুস কারখানার’ ৬ষ্ঠ তলা ভবনের নিচতলার একটি ফ্লোরের আগুনের সূত্রপাত হয়। এক পর্যায়ে আগুন পুরো ভবনে ছড়িয়ে পরে। ঘটনার সংবাদ প্রাপ্তির সাথে সাথে র‌্যাব-১১ নারায়ণগঞ্জ এর ০৬টি টহল দল ও ০১টি গোয়েন্দা দল দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার অভিযানে অংশগ্রহণ করে। উক্ত অগ্নি দূর্ঘটনায় ৫২ জন মৃত্যুবরণ করেন। র‌্যাব ফোর্সেস এর অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস্), পরিচালক (অপারেশনস উইং), পরিচালক (লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইং) ও র‌্যাব-১১ এর অধিনায়কসহ র‌্যাবের মহাপরিচালক অতিরিক্ত আইজিপি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন বিপিএম, পিপিএম, দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। র‌্যাব মহাপরিচালক উক্ত দূর্ঘটনায় হতাহত ও ক্ষতিগ্রস্থদের প্রতি সমবেদনা প্রকাশ করেন এবং দোষী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনার জন্য ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের আশ্বাস প্রদান করেন।


উক্ত মানবিক সহায়তা প্রদান কার্যক্রমে আরো উপস্থিত ছিলেন র‌্যাব ফোসের্স এর অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস্), অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন), পরিচালক (অপারেশনস্ উইং),পরিচালক (লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইং), পরিচালক (ইনভেষ্টিগেশন এন্ড ফরেনসিক উইং), পরিচালক (ট্রেনিং এন্ড ওরিয়েন্টেশন উইং), পরিচালক (আর এন্ড ডি সেল), পরিচালক (প্রকল্প) ও র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক সহ র‌্যাবের অন্যান্য উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ। উক্ত মানবিক সহায়তা কার্যক্রমে ৫০০ শতাধিক হতাহত ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে সহায়তা প্রদান করা হয়।
চলমান করোনা মহামারীতে র‌্যাব বিভিন্ন সময়ে সারাদেশে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করছে। দুস্থ ও নিপীড়িত মানুষের পাশে এবং দেশের যেকোন আপদকালীন মুহূর্তে র‌্যাব ফোর্সেস সর্বদা মানুষের পাশে থেকে সব ধরণের সহায়তা প্রদান করে আসছে। র‌্যাব মানবিক বিপর্যয় রোধে আগ্নিকান্ডের ঘটনায় শোকাহত পরিবারের পাশে দাঁড়াতে চায়। তাই সামাজিক দায়বদ্ধতার অংশ হিসেবে র‌্যাব হতাহত এবং ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে মানবিক সহায়তা প্রদান করেছে।
উল্লেখ্য, র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) মাদক উদ্বার, জঙ্গিদের আটক, অস্ত্র উদ্বার, বিভিন্ন জনগুরুত্বপূর্ণ মামলার আসামীদের গ্রেফতারসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। এই বাহিনী প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই অপরাধ দমনের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে অংশগ্রহণ করে জনসাধারণের পাশাপাশি থেকে বিভিন্ন সেবামূলক কাজের মাধ্যমে সর্বস্তরের মানুষের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। দেশের যেকোন দুর্যোগ মুহূর্তে র‌্যাব সবসময়ে বন্ধু হয়ে জনসাধারণের পাশে দাঁড়িয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..