1. grameendarpan@gmail.com : admi2017 :
  2. taife.nur14@gmail.com : taifur nur : taifur nur
May 22, 2022, 12:00 pm
Title :
নরসিংদী রেল স্টেশনে তরুণী লাঞ্চিতের ঘটনায় অভিযোগ করেনি ভুক্তভোগী, ছায়া তদন্তে জেলার বিভিন্ন সংস্থা নরসিংদীতে বাংলা টিভির বর্ষপূতি উদ্যাপন ঈদ, পূজা-পার্বণ আমাদের সার্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে: পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান বিট পুলিশিং বাড়ি বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি আজ আন্তর্জাতিক নার্স দিবস শিবপুরে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টিম পুরস্কার বিতরণের মধ্য দিয়ে নরসিংদীতে ২ দিনব্যাপী বিজ্ঞান মেলা সমাপ্ত নরসিংদীতে রমজান উপলক্ষে মহাসড়কে যানজট ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সভা অনুষ্ঠিত পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষ্যে বিশেষ প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত
Title :
নরসিংদী রেল স্টেশনে তরুণী লাঞ্চিতের ঘটনায় অভিযোগ করেনি ভুক্তভোগী, ছায়া তদন্তে জেলার বিভিন্ন সংস্থা নরসিংদীতে বাংলা টিভির বর্ষপূতি উদ্যাপন ঈদ, পূজা-পার্বণ আমাদের সার্বজনীন উৎসবে পরিণত হয়েছে: পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান বিট পুলিশিং বাড়ি বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি আজ আন্তর্জাতিক নার্স দিবস শিবপুরে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পরিদর্শনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের টিম পুরস্কার বিতরণের মধ্য দিয়ে নরসিংদীতে ২ দিনব্যাপী বিজ্ঞান মেলা সমাপ্ত নরসিংদীতে রমজান উপলক্ষে মহাসড়কে যানজট ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে সভা অনুষ্ঠিত পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষ্যে বিশেষ প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত

বাজারের নাম স্বামী-স্ত্রীর হাট, মাঠের নাম খাশীর বন্দ

Reporter Name
  • Update Time : Thursday, August 12, 2021
  • 70 Time View

আতাউর রহমান ফারুক: স্বামী-স্ত্রী পিঠে বানিয়ে বেচতেন তিন রাস্তার মোড়ে। সেখানে একটা দুটো করে বসে দোকান। চা দোকান, মুদী দোকান, ওষুধের দোকান, ফ্ল্যাক্সি বিকাশ, সেলুন সব দোকান বসতে থাকে একে একে। মোটামুটি একটি গ্রাম্য হাট উপযোগী সব দোকানপাট হয়ে যায়। মানুষের মুখে মুখে নাম ছড়ায় তখন।

এভাবেই হয়ে গেলো স্বামী-স্ত্রীর হাট। মাঠে খাশী ছেড়ে লালন পালন হতো। এ কারনে শতাব্দী কাল থেকেই নাম হয়ে গেলো খাশীর বন্দ।
আনোয়ার এবং নীপা এক ছিন্নমূল দম্পতি। বছর পাঁচেক আগে পেটের তাগিদে মনোহরদীর পশ্চিম চরমান্দালিয়া গ্রামের এক মোড়ে চিতই পিঠে বানিয়ে বেচতে শুরু করেন তারা। পর্যায়ক্রমে একটা দুটো করে স্থায়ী দোকান- ঘর উঠে সেখানে।

হয় চা-কফির দোকান, মুদী দোকান, ওষুধের দোকান, ফোন রিচার্জ-বিকাশ, সেলুন এবং কাপড়ের দোকান সব। স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত শাক সবজী ফলমূলও বেচতে নিয়ে আসেন কেউ কেউ। মাছ বিক্রেতাও আসেন মাঝে মধ্যে তাদের পসরা নিয়ে। খুব আহামরি কিছু নয়। কিন্তু একটি গ্রামীন জনপদের জরুরী প্রয়োজনীয় সব উপকরনের দোকানই আছে এ হাটে। অচিরেই আরো কিছু দোকান হবার কথা চলছে বলে জানালেন স্বামী-স্ত্রীর হাটে উপস্থিত লোকজন। নাম বৈচিত্রের কারনে স্বামী-স্ত্রীর হাট ইতোমধ্যেই এলাকায় ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছে। হাটটিতে কোন রকম আহামরি বৈশিষ্ট নেই। কিন্তু শুধুমাত্র নাম বৈচিত্রের কারনেই হাটটি ব্যাপক পরিচিতি পেয়েছে এলাকায়।হাটটির খোঁজে যাবার সময় এ রকম ধারনাই মিলেছে পথে পথে। পরবর্তীতে দোকানের সাইন বোর্ড ও ঠিকানায়ও জায়গা করে নেয় স্বামী-স্ত্রীর হাট নামটিই। হাটে উপস্থিত পশ্চিম চর মান্দালিয়া গ্রামের বয়ো জ্যেষ্ঠ বাসিন্দা হাজী আ. ওহীম (৯০), নুরুল ইসলাম (৭১) ও এলাকার সাবেক ইউপি মেম্বার মুজিবুর রহমানের সাথে আলাপকালে এসব তথ্য জানান তারা। এ হাটটির অনতিদূরেই চরমান্দালিয়া ও খিদিরপুর সীমানায় রয়েছে একটি ফসলি মাঠ। শত শত খাশী গলায় রশি না বেঁধে ছেড়ে লালন পালন করা হতো এ মাঠে। হাজী আ. ওহীম (৯০) জানালেন, শতাব্দীকাল আগে থেকে এভাবেই মাঠটি খাশীর বন (বন্দ) নামে পরিচিতি লাভ করেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category