1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
April 23, 2024, 10:02 am

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের চীনা ধাঁচে আধুনিকায়নের অভিজ্ঞতা অর্জন

প্রতিবেদকের নাম
  • পোস্টের সময় Saturday, April 29, 2023
  • 207 বার দেখা হয়েছে

চীন প্রতিনিধি: চীনা ধাঁচের আধুনিকায়নের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য, চীন এবং বিদেশি দেশগুলোর মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতার প্রচার করতে, পাঁচ দিনব্যাপী “চায়না ইন মাই আইস-ঝচিয়াং ট্রিপ সফলভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ছিল স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ।

বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য ২৪ এপ্রিল থেকে ২৮ এপ্রিল পর্যন্ত পাঁচ দিনব্যাপী এই ভ্রমণের আয়োজন করে দ্য চাইনিজ পিপলস অ্যাসোসিয়েশন ফর ফ্রেন্ডশিপ উইথ ফরেন কান্ট্রিস। আয়োজনে সহযোগিতা করে ঝচিয়াং প্রভিন্সিয়াল পিপলস অ্যাসোসিয়েশন ফর ফ্রেন্ডশিপ উইথ ফরেন কান্ট্রিস।

ইভেন্টে অংশগ্রহণকারীরা ঝচিয়াং প্রদেশের হ্যাংঝু, চিয়াশিং, এবং হুঝো শহরসহ অন্যান্য জায়গা পরিদর্শন করেন। সার্বিকভাবে তত্ত্বাবধান করেন, দ্য চাইনিজ পিপলস অ্যাসোসিয়েশন ফর ফ্রেন্ডশিপ উইথ ফরেন কান্ট্রিসের সাংস্কৃতিক বিনিময় বিভাগের পরিচালক ঝু তান।

চীনে অধ্যয়নরত তিন বাংলাদেশি শিক্ষার্থী এই ইভেন্টে অংশগ্রহণ করে। তারা হলেন মাইনুল ইসলাম আপন, মেহেদী হাসান সানি এবং মো. সোহাগ হোসেন।

ইভেন্টের মূল উদ্দেশ্য ছিল, ঝচিয়াং প্রদেশের দারিদ্র্য বিমোচন ও গ্রামীণ উন্নয়ন, উদ্ভাবন-চালিত উন্নয়ন ও সবুজ উন্নয়ন, মানুষ ও প্রকৃতির মধ্যে সহাবস্থান, সহ-সমৃদ্ধি এবং সাংস্কৃতিক উন্নয়ন, গ্রামীণ পর্যটন ও সুন্দর দৃশ্যাবলী, চীনা কমিউনিস্ট পার্টি এবং চীনের সমৃদ্ধ ও গভীর ইতিহাস, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন, এবং চীনা-শৈলীর আধুনিকীকরণের অভিজ্ঞতা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ভাগ করে নেওয়া। যাতে করে অন্যান্য দেশগুলো এই বাস্তব অভিজ্ঞতা স্ব-স্ব দেশে কাজে লাগাতে পারে।

ইভেন্টে অংশগ্রহণকারী বাংলাদেশি শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান সানি বলেন, চীনা ফ্রেন্ডশিপ অ্যাসোসিয়েশনকে ধন্যবাদ জানাই এমন সুন্দর একটি আয়োজনের জন্য। আমি চীনের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের পাশাপাশি চীনের গ্রাম উন্নয়ন সম্বন্ধে অনেক জেনেছি। সেখানে দেখেছি কিভাবে দূষিত অবস্থা থেকে গ্রামের পরিবেশকে তার আপন রুপে ফিরিয়ে আনা হয়েছে, কিভাবে গ্রামের মানুষের অর্থনৈতিক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে।শতকোটি মানুষের এই দেশের দরিদ্র বিমোচন সহ অর্থনৈতিক উন্নয়ন থেকে আমাদের অনেক কিছু শেখার আছে।

আরেক শিক্ষার্থী মাইনুল ইসলাম আপন বলেন, এই চমৎকার ভ্রমণে আমার খুব ভাল অভিজ্ঞতা হয়েছে। আমরা চীনের বিভিন্ন প্রদেশে বসবাসরত বিদেশীরা এই ইভেন্টে অংশগহণ করি এবং ঝচিয়াং প্রদেশের বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন করেছি। আমি চীনের সংস্কৃতি ও ইতিহাস, দারিদ্র্য বিমোচন ও গ্রামীণ উন্নয়ন, প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন সহ চীনা কমিউনিস্ট পার্টি কীভাবে মানুষের কল্যাণে কাজ করছে তা জেনেছি।

বাংলাদেশ, নেপাল, আমেরিকা, যুক্তরাজ্য, আফগানিস্তান, পাকিস্তান, লাওস, থাইল্যান্ড, নাইজেরিয়া, কেনিয়া সহ ৪টি মহাদেশের ১৯টি দেশ ও অঞ্চলের ২৫ জন প্রতিনিধি পাঁচ দিনব্যাপী ঝচিয়াং প্রদেশ ভ্রমণে অংশগ্রহণ করে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন