1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
April 18, 2024, 8:29 pm
সর্বশেষ সংবাদ
আগে ঘরের ছেলেরা নিরাপদে ঘরে ফিরুক উপজেলা নির্বাচনে শুধু প্রার্থী নয়, যে কেউ প্রভাব বিস্তার করবে তার বিরুদ্ধেও পদক্ষেপ নেয়া হবে: ইসি মো. আলমগীর নরসিংদী জেলা পুলিশের নিয়মিত অভিযানে ১১ কেজি গাঁজা ও ১০৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার গ্রেফতার ০৩ নরসিংদীতে ইউপি সদস্য খুন ‘ইসমাইলকে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই জড়িত সবার নাম-পরিচয় জানা যাবে’ অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনারে বিরুদ্ধে অপপ্রচারের প্রতিবাদে ৯৮ ব্যাচ বন্ধুদের সংবাদ সম্মেলন মাধবদীর নুরালাপুরে ভূমি দস্যু ও মামলাবাজ আনজত আলীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ জনসাধারণ রায়পুরায় বজ্রপাতে একজন নিহত নরসিংদী পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন বাচ্চুর সফলতার ৩ বছর উৎযাপন শিবপুরে সৎ মায়ের নির্যাতনে শিকার ৩ ভাই ঘর ছাড়া মেলায় দৌলতপুর ইউপি সদস্যের জুয়ার আসর!!

করোনার ভ্যাক্সিন নিয়ে ধোঁয়াশা

প্রতিবেদকের নাম
  • পোস্টের সময় Monday, April 27, 2020
  • 405 বার দেখা হয়েছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: স্বল্পতম সময়ের মধ্যেই করোনাভাইরাসে টিকা তৈরির আশা করছেন বিজ্ঞানীরা। বিশেষজ্ঞরা আগেভাগেই বিষয়টি নিয়ে সতর্ক করে দিয়েছেন। তাঁরা বলছেন, সরকারদের অবশ্যই এখনই একটি নৈতিক ও ন্যায়সংগত বিশ্ব প্রক্রিয়ার সন্ধান শুরু করতে হবে, যা সহজ হবে না। যুক্তরাজ্যের দ্য গার্ডিয়ান পত্রিকায় এ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে।
২০০৬ সালের ইন্দোনেশিয়ার কর্তৃপক্ষ ভ্যাকসিন তৈরি হলে তা থেকে সুবিধা পাওয়ার নিশ্চয়তা না পাওয়া পর্যন্ত বার্ড ফ্লুর নমুনা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল। ২০০৯ সালে সোয়াইন ফ্লু ছড়ানোর সময় অস্ট্রেলিয়া সরকার ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে বিদেশে রপ্তানির আগে দেশের চাহিদা মেটানোর আদেশ দিয়েছিল। ওই বছরের নভেম্বরে কয়েকটি উন্নত দেশ ভ্যাকসিন সুরক্ষিত করতে শুরু করলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মকর্তারা সামনে ভয়াবহ পরিস্থিতি ঘটতে পারে বলে উদ্বেগ জানিয়েছিলেন।
গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে জানানো হয়, করোনভাইরাস সংকট উতরানোর কয়েকটি মূল উপায়ের মধ্যে ভ্যাকসিন তৈরি একটি। এর মধ্যে ‘ভ্যাকসিন জাতীয়তাবাদের’ আশঙ্কা বাড়ছে। একটি ভ্যাকসিন তৈরি, পরীক্ষা ও ব্যাপক হারে উৎপাদন করার প্রতিটি পদক্ষেপ বিশাল চ্যালেঞ্জ। পরবর্তী বিতরণকে ঘিরে রাজনৈতিক ও নৈতিক সিদ্ধান্তগুলো আরেক চ্যালেঞ্জ।
যুক্তরাজ্যসহ সরকারগুলো কীভাবে কাতারের সামনে থাকবে, তা নিয়ে প্রশ্ন করা হচ্ছে। ভ্যাকসিন কীভাবে বণ্টিত হবে? সবচেয়ে যে বেশি দাম দেবে, সে কি তা পাবে, নাকি ইতিমধ্যে ধনী দেশের কাছে সম্ভাব্য সব ভ্যাকসিন বিক্রি হয়ে গেছে? আরও প্রশ্ন উঠছে, ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী দেশ নিজেদের টিকা বাইরে যাওয়া ঠেকালে কী হবে, তা নিয়ে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এক বছরের মধ্যে হয়তো করোনাভাইরাসের টিকা চলে আসবে। সবকিছু ঠিক থাকলে এই ১২ মাস সবাইকে অপেক্ষায় থাকতে হবে। ইবোলা ভ্যাকসিন উৎপাদক দলের সদস্য স্টিভেন জোনস বলেন, ‘বাস্তবতা হচ্ছে, ভ্যাকসিন কীভাবে বণ্টন করা হবে, তা নিয়ে এখনো কোনো প্রক্রিয়া প্রতিষ্ঠা করা হয়নি।’
বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা করছেন, এক বছর পর ভ্যাকসিন পাওয়া গেলেও শুরুতে অপর্যাপ্ত সরবরাহ থাকবে। বৈশ্বিক চাহিদা মেটানোর মতো ডোজ তৈরি করা সম্ভব হবে না। তাই ভ্যাকসিন পাওয়ার সারি দীর্ঘ হবে। তাই এক্ষেত্রে কোনো একক কোম্পানি চাহিদা মেটাতে পারবে না। বড় বড় কোম্পানিকে এগিয়ে আসতে হবে। এক্ষেত্রে রাজনৈতিক লড়াই বা রপ্তানি নিষেধাজ্ঞার মতো সমস্যাও আসতে পারে। বিশ্বের বিভিন্ন উৎস থেকে একাধিক ভ্যাকসিন এ সমস্যার সমাধান করতে পারে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন