1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
March 1, 2024, 10:05 pm
সর্বশেষ সংবাদ
বিজিএমইএ নির্বাচনের জন্য ২৫ দফার ইশতেহার ঘোষণা ফোরাম প্যানেলের পোশাকশিল্পের জন্য আলাদা মন্ত্রণালয় চায় ফোরাম নয়াচরে ৫৬ বছর ধরে আলো ছড়াচ্ছে মাওলানা অছিউদ্দীনের পাঠাগার রায়পুরায়  জমি সংক্রান্ত বিরোধে বাড়ীতে হামলা ভাঙচুর লুটপাট পেট্রোল দিয়ে অগ্নিদগ্ধের ঘটনায় প্রাক্তন স্বামীর মৃত্যুর দুই দিন পর চিকিৎসক স্ত্রী লতার মৃত্যু নরসিংদীতে র‌্যালী ও আলোচনাসভার মধ্য দিয়ে জাতীয় বীমা দিবস পালিত বেলাব থানার ওসি পেলেন ‘রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক’ হাজী আবেদ আলী কলেজে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত সুস্থ দেহ সুন্দর মনের অধিকারী হতে হলে খেলাধুলার বিকল্প নেই -জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সাস নরসিংদীর আয়োজনে বসন্তবরণ ও বৈজ্ঞানিক সেমিনার অনুষ্ঠিত নতুন ডাক্তারদেরকে কনভেশনাল সার্জারীর পাশাপাশি ল্যাপারোস্কোপিক ও রোবটিক সার্জারীর জ্ঞান ও রপ্ত করতে হবে -ডা. সুবিনয় কৃষ্ণ পাল স্বাধীন অর্থনীতি র‍্যাংকিং এ সাত ধাপ উন্নতি বাংলাদেশের যোগাযোগ ব্যবস্থায় ১২টি এক্সপ্রেসওয়ে যুক্ত করার মহাপরিকল্পনা

শেষ মুহূর্তের রোমাঞ্চের পরও টেস্ট ড্র

প্রতিবেদকের নাম
  • পোস্টের সময় Monday, November 20, 2017
  • 550 বার দেখা হয়েছে
ফাইল ছবি

কলকাতার ইডেন গার্ডেনে শেষ দিনে টেস্ট নিশ্চিত ড্র জেনেও যে ক’জন দর্শক এসেছিলেন খেলা দেখার জন্য, শেষ মুহূর্তের দারুণ এক রোমাঞ্চকর অনুভুতি নিয়েই ঘরে ফিরতে পেরেছেন তারা। কারণ, নিষ্প্রাণ ম্যাচটিতে শেষ বেলায় যেভাবে ভারতীয় বোলাররা লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের ওপর, চেপে বসেছিলেন- আর কিছুক্ষণ সময় পেলে তো ম্যাচটাই হয়তো জিতে যাচ্ছিলেন তারা। বিরাট কোহলিদের জন্য হতো সেটা বিরাট পাওয়া।

কিন্তু টেস্ট চলে তার আপন গতিতে। সময় শেষ হয়ে গেলে খেলাও শেষ। অবস্থায় যাই হোক না কেন, তার ওপর ভিত্তি করেই ফল নির্ধারণ। সুতরাং, সে হিসেবে নিস্প্রান ড্র দিয়েই শেষ হলো ম্যাচটি। কেউ জেতেনি, কেউ হারেওনি। শেষ মুহূর্তের রোমাঞ্চ ক্রিকেটকেই জয়ী করে দিয়েছে।

ইডেন গার্ডেনে সবুজ উইকেট তৈরি করেই বিপদে পড়েছিল ভারত। লঙ্কান পেসারদের গতির আগুনে পুড়তে হলো তাদের। প্রথম ইনিংসে তাই অলআউট হতে হয়েছে মাত্র ১৭২ রানে। যদিও শ্রীলঙ্কাও খুব বেশিদুর এগুতে পারেনি। ২৯৪ রানে অলআউট হয়েছিল সফরকারীরা। ১২২ রানের লিড নিতে সক্ষম হয় দিনেশ চান্ডিমালের দল।

জবাব দিতে নেমে দ্বিতীয় ইনিংসে পুরোপুরি ভিন্ন চেহারায় ভারত। এটাই ছিল ভারতের আসল চেহারা। খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসে ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। ওপেনার শেখর ধাওয়ান ৯৪ রান করে আউট হন। ৭৯ রান করেন আরেক ওপেনার লোকেশ রাহুল। বিরাট কোহলি করেন অপরাজিত সেঞ্চুরি। তিনি নট আউট থাকেন ১০৪ রানে।

৮ উইকেট হারিয়ে দলীয় ৩৫২ রানে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। ফলে জয়ের জন্য শ্রীলঙ্কার সামনে দাঁড়িয়ে যান ২৩১ রানের লক্ষ্য। এই লক্ষ্য তাড়া করে জয় সম্ভব নয়। কারণ সময় ছিল খুব কম। নিশ্চিত ড্রয়ের ম্যাচ। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে উল্টো ভারতীয় পেসারদের তোপের মুখে দিশেহারা হয়ে পড়ে লঙ্কান ব্যাটসম্যানরা। ভুবনেশ্বও কুমার আর মোহাম্মদ শামি যেন মুর্তিমান আতঙ্ক। একের পর এক উইকেট তুলে নিতে শুরু করেন তারা। ভুবনেশ্বর নেন ৪ উইকেট। শামি নেন ২টি। ১টি নেন উমেষ যাদব।

৭ উইকেট হারিয়ে শ্রীলঙ্কা যখন দিন শেষ করে স্কোরবোর্ডে তাদের রান ৭৫। ভাগ্যিস দিন শেষ হয়ে গিয়েছিল। আর কিছুক্ষণ থাকলে পরাজয়ই বরণ করতে হতো তাদের।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন