1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
February 23, 2024, 5:25 pm
সর্বশেষ সংবাদ
শ্রীপুরে মহাসড়কের পাশের সাড়ে ৩ হাজার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ট্রাব অ্যাওয়ার্ড পেলেন পরিচালক পলাশ মণি দাস নরসিংদীতে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় অজ্ঞাত এক নারী নিহত পাঁচদোনা কেন্দ্রে নকলমুক্ত পরিবেশে এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত মনোহরদীতে কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় মোটর সাইকেল আরোহী নিহত সাস নরসিংদীর বার্ষিক বনভোজন অনুষ্ঠিত হয় গাঁজীপুরের গভীর বনে নক্ষত্রবাড়ী রিসোর্টে ভেজাল খাবার বিক্রেতাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে হবে -আসমা সুলতানা নাসরীন বই মেলায় পাওয়া যাচ্ছে নূরুল ইসলাম নূরচানের তিন বই বেলাবতে কৃষি ব্যাংক কর্তৃক গ্রাহকদের সাথে মতবিনিমিয় সভা অনুষ্ঠিত মাধবদীতে ১৩ কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

করোনায় ‘নাসা’র নতুন ভেন্টিলেটর উদ্ভাবন

প্রতিবেদকের নাম
  • পোস্টের সময় Saturday, April 25, 2020
  • 425 বার দেখা হয়েছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। প্রতিদিন হাজার-হাজার মানুষ নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যু। এরই মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়িয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ৯ লাখ। এই পরিস্থিতিতে মার্কিন মুলুকে ভেন্টিলেটরের সংকট তৈরি হয়েছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে এবার ভেন্টিলেটর তৈরিতে নেমেছে মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা (নাসা)।
নাসার প্রকৌশলীরা বৃহস্পতিবার ঘোষণা করেছেন যে, তারা করনা ভাইরাস রোগীদের চিকিৎসার জন্য বিশেষ ভাবে নকশাকৃত একটি নতুন এবং তাৎক্ষণিক ভাবে প্রয়োজনীয় ভেন্টিলেটর তৈরিক রেছেন। নতুন এই ভেন্টিলেটর তৈরি করতে তাদের মাত্র ৩৭ দিন সময় লেগেছে।
দক্ষিন ক্যালিফোর্নিয়ায় নাসার জেট প্রপালশন ল্যাবরেটরির বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলীরা ‘ভিটাল’ নামে পরিচিত একটি সম্পূর্ণ নতুন ধরনের ভেন্টিলেটর ডিজাইন করেছেন। করোনা রোগীদের প্রয়োজনের কথা চিন্তা করে অত্যন্ত দ্রুততম সময়ে এটি ডিজাইন করা হয়েছে।
ল্যাবের ডিরেক্টর মাইকেল ওয়াট কিনস বলেছেন, এই ধরনের ডিভাইস তৈরি করা নাসা সাধারণত বিশেষায়িত কোন সংস্থা নয়, তবে এই মুহুর্তের প্রয়োজনের কথা মাথায় রেখে নাসার মাধ্যাকর্ষণ প্রকৌশলীরা এমন একটা জীবন রক্ষাকারী প্রকল্পে হাত দিয়েছেন।
ওয়াট কিনস এক প্রেসবিবৃতিতে বলেছে, ‘আমরা মহাকাশ যানে বিশেষজ্ঞ, মেডিক্যাল ডিভাইস উৎপাদনে না। তবে আমাদের প্রকৌশলীরা চমৎকার ইঞ্জিনিয়ারিং, কঠোর পরিশ্রম এবং দ্রুত প্রোটোটাইপিং করায় অভিজ্ঞ। জেপিএল-এর লোকেরা যখন বুঝতে পেরেছিল যে চিকিৎসা সম্প্রদায়কে এই সময়ে সহায়তা করা দরকার। তাদের প্রয়োজনীয় উপকরণ সরবরাহ করা দরকার। তখন নাসার মহাকাশ বিজ্ঞানীরা তাদের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা নিয়ে সাহায্যের জন্য এগিয়ে এসেছে। এটা আমাদের দায়িত্ব।’
নাসা জানিয়েছে যে, ডিভাইসটি এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন কর্তৃক সরকারী ভাবে অনুমদনের জন্য অপেক্ষায়। সবুজ সংকেত পেলেই প্রকৌশলীরা জরুরী ভিত্তিতে কাজ শুরু করবেন। জাতীয় সঙ্কটের এমন সময়ে দ্রুততম সময়ে আশাবাদী সংস্থাটি।
সূত্র- কোর্ট হাউস নিউজ সার্ভিস।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন