1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
February 28, 2024, 12:08 pm
সর্বশেষ সংবাদ
রায়পুরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডাক্তারের অবহেলায় নবজাতকের মৃত্যু নরসিংদীতে ২ ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে জরিমানা নরসিংদীতে” শিক্ষার্থীদের মাঝে সততা চর্চা ও সততার অভ্যাস গড়ে তোলার লক্ষ্যে দুর্নীতি বিরোধী জনসচেতনতা সভা শর্ট বাউন্ডারি ক্রিকেট টুর্ণামেন্টে কান্দাইল বন্ধু মহল একাদশের বিজয় মনোহরদী পৌরসভা মেয়রের সাথে ইমাম মোয়াজ্জিনদের মতবিনিময় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ১০ নির্দেশনা বায়বায়নে বেসরকারি হাসপাতালে অভিযান মূল্যস্ফীতি কমবে মে-জুনে সাবধান, বাজারে আসছে ‘গণধোলাই’ নরসিংদীর মডেল ক্যাডেট কেয়ার থেকে ৯ শিক্ষার্থী ক্যাডেটে ভর্তির লিখিত পরীক্ষায় চান্স রায়পুরায় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত

নরসিংদী মানুষ দেখলো এক বিরল দৃষ্টান্ত

প্রতিবেদকের নাম
  • পোস্টের সময় Saturday, June 27, 2020
  • 452 বার দেখা হয়েছে

নরসিংদী মানুষ দেখলো এক বিরল দৃষ্টান্ত
মো. শাহ আলম মিয়া

ইতিহাস স্বাক্ষী যখনই কোন জাতি বা দেশ কিংবা বৈশ্বিক কোন মহামারী বা কোন দুর্যোগ মানব জীবনকে ছেয়ে যায়, তখন মহামারী তৎপরবর্তী সময়ে দেখা দেয় এনভায়রনমেন্টাল ডিজেস্টার বা প্রাকৃতিক বিপর্যয়, প্রকৃতির ইকোসিস্টেম বিনষ্ট হয়, তাই শস্য উৎপাদনে ব্যাঘাত ঘটে আর খাবারের অপ্রতুলতার কারণে দেশে দেশে দেখা দেয় ভয়াল দুর্ভিক্ষ। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় ১৯৪৩ খ্রিস্টাব্দে বা বাংলা ১৩৫০ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ চলমান, সকলের ধারনা ছিল জাপান ভারতবর্ষে আক্রমণ করবে রাষ্ট্রনায়কদের কর্তৃক সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সকলেই যার যার অবস্থানে অন্ততপক্ষে দুই মাসের খাবার মওজুদ করে রাখতে হবে। এই ভয় ও শঙ্কায় সবাই খাদ্য শস্য ক্রয়ে অনাহুত প্রতিযোগিতা শুরু করে কৃষক তার গোয়ালের গরু বিক্রি করে বা কৃষি জমি কিংবা লাঙ্গল বিক্রি করে খাদ্য সামগ্রী মওজুদ করতে থাকে। তার উপর উপকূলীয় অঞ্চলের প্রায় ৩২ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকাজুড়ে ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানে। ঐ অঞ্চলের সকল উৎপাদিত শস্য বিনষ্ট করে দেয়। তাছাড়া জাপান যাতে এই অঞ্চল দখল করে বাজারে খাদ্য সামগ্রী না পায় সেজন্য কৃষকদের যার যার ফলনশীল শস্য বাজারে বিক্রি না করে মওজুদ রাখতে বলা হয়। পরিবহনের জন্য গরুর গাড়ি কিংবা নৌকাগুলো নষ্ট করে দেয়া হয়। যার ফলে পরবর্তী বছরগুলোতে নেমে আসে ভয়াবহ দূর্ভিক্ষ। লাখ লাখ মানুষ মারা যায় ঐ বিপর্যয়ে, এটা ৫০ এর মন্বন্তর নামেও পরিচিত, তাই প্রকৃতির ভারসাম্যহীনতার উপর কারোরই আঘাত আনা নিষ্প্রয়োজন বরং প্রকৃতির সাথে সাদৃশ্য হয়ে বা তাল মিলিয়ে ইহা হতে শস্য ফলানোর চেষ্টা করাই সর্বোচ্চ যথার্থ ভূমিকা বটে, বর্তমান বৈশ্বিক করোনা মহামারীর যে অবস্থান এর থেকে উত্তরণে ও আমাদের খাদ্য চাহিদা সুসম্পন্ন রাখতে অধিক ফলনশীল শস্যের উপর নজর দিতে হবে। যার যেটুকু ভূমি আছে বা আবাদি কিংবা অনাবাদি সকল জমিতে শস্য ফলানোর চেষ্টা করতে হবে। কৃষক ও কৃষির উপর সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে। তাহলেই আমরা পারবো জয় করতে সকল প্রাকৃতিক প্রতিকূলতা, সেই সদিচ্ছা ও মনোভাব প্রতিটি কৃষক ও মানুষের মনে প্রণোদিত করতে আমাদের মান্যবর জেলা প্রশাসক সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন স্যার এর বিনামূল্যে কৃষকের মধ্যে বীজ বিতরণ ও প্রতিটি মানুষ যাতে উৎসাহিত হয় সেই লক্ষ্যে উদ্দীপনা স্বরূপ কৃষি জমিতে নিজ হাতে বীজ রোপন করছেন। নরসিংদী মানুষ দেখলো এক বিরল দৃষ্টান্ত। নরসিংদীর ইতিহাসে প্রথম কোন জেলা প্রশাসক কৃষিতে উৎসাহিত করতে কৃষকের জমিতে নিজ হাতে বীজ রোপন করে দেখালেন, একেই বলে প্রকৃত স্বদেশ প্রেম। আমরা নরসিংদীবাসী গর্বিত আমাদের জেলা প্রশাসক স্যারকে আমাদের মাঝে সেবার ব্রত নিয়ে কাজ করতে দেখে। আমরা করোনা মহামারীকে করবো জয়, বুকে আছে দৃঢ় প্রত্যয় ইনশাআল্লাহ, করবো জয়। সূত্র: অনলাইন

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন