1. [email protected] : admi2017 :
  2. [email protected] : news post : news post
  3. [email protected] : taifur nur : taifur nur
April 12, 2024, 12:35 pm

নরসিংদীতে মোট করোনায় আক্রান্ত ১২৪৩, সুস্থ্য ৬৫৫, মৃত ৩০ জন

প্রতিবেদকের নাম
  • পোস্টের সময় Monday, June 22, 2020
  • 475 বার দেখা হয়েছে

গ্রামীণ দর্পণ ডেস্ক: দুই দিন অপেক্ষার পর সোমবার সকালে করোনা আক্রান্তের খবর দিয়েছে নরসিংদী স্বাস্থ্য বিভাগ। বিকাল ৩ টা পর্যন্ত তথ্য অনুযায়ী মোট ২৮ জন করোনা রোগী সনাক্তসহ ২ জনের মৃত্যুর খবর জানিয়েছে নরসিংদী সিভিল সার্জন অফিস। নতুন আক্রান্তদের মাঝে নরসিংদী সদর উপজেলায়-১৬ জন, শিবপুর-২, বেলাব-৪, মনোহরদী-২, পলাশ-১ জন ও রায়পুরায়-৩ জন। মৃত দুইজনের মধ্যে নরসিংদী শহরের বাসাইল মহল্লার নাহিদা (২০) সোমবার ও চিনিশপুর এলাকার রাবেয়া বেগম (৫৫) গত মঙ্গলবার করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। সোমবার পর্যন্ত জেলায় মোট করোনা পজেটিভ রোগী ছিল ১২৪৩ জন। এদের মধ্যে নরসিংদী সদর উপজেলায়-৮২০ জন, শিবপুর-১০৭ জন, পলাশ-১০১ জন, মনোহরদী-৬০ জন, বেলাব-৬৮ জন, রায়পুরা উপজেলায়-৮৫ জন। সুস্থ্য হয়ে আইসোলেশন মুক্ত হয়েছেন-৬৫৫ জন। বর্তমানে হাসপাতালে আইসোলেশনে আছেন ২৯ জন। হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ৫৫৮ জন। জেলা থেকে মোট স্যাম্পল সংগ্রহ করা হয়েছে ৬৫৫৬ জনের। রেজাল্ট পাওয়া গেছে ৫৭৭৯ টি নমুনার। ৭৭৭টি নমুনার ফলাফল বাকী রয়েছে। এ পর্যন্ত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন-২৭ জন। এদের মধ্যে নরসিংদী সদর উপজেলায়-১৭ জন, পলাশ-১ জন, শিবপুর-১ জন, রায়পুরা-৩ জন, মনোহরদী-২ জন ও বেলাব উপজেলায়-৩। নরসিংদী জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এছাড়া আরো ৫ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩০ জনে। ২২ জুন সোমবার নরসিংদী শহরের বাসাইল মহল্লার নাহিদা (২০) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ১৮ জুন নরসিংদী সদর উপজেলার মাধবদী দড়িপাড়া এলাকার বাবুল মিয়া (৫২) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ১৮জুন নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর এলাকার রাবেয়া বেগম (৫৫) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ১৭ জুন মনোহরদী উপজেলার বাসিন্দা মোজাম্মেল হক (৪৬) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ১৫ জুন নরসিংদী সদর উপজেলার বাসিন্দা খোদেজা বেগম (৬৩) করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ডায়াবেটিসের সমস্যায় ভুগছিলেন। ১৫ জুন নরসিংদী সিভিল সার্জন অফিসে কর্মরত পরিসংখ্যানবিদ আবদুল মতিন (৪৫) করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় সকাল ৮টায় মৃত্যুবরণ করেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবত ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপে ভুগছিলেন। তিনি নরসিংদী শহরের বাসাইল এলাকার বসবাস করতেন। ১৪ জুন শিবপুর আশ্রাফপুর গ্রামের মিনারুল হক খান (৬৪) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি লিভারের সমস্যায় ভুগছিলেন। ১১ জুন নরসিংদী সদর উপজেলার বাগহাটা এলাকার নূর মোহাম্মদ (৫০) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ১০ জুন মনোহরদী উপজেলার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আশরাফ হোসেন খান (৭০) রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও কিডনিজনিত রোগে আক্রান্ত ছিলেন। ১০ জুন সন্ধ্যায়, রায়পুরা লোচনপুরা এলাকার ফিরুজ মিয়া (৫৫) করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকার সিএমএইচ এ মৃত্যুবরণ করেন। ১০ জুন দুপুরে নরসিংদী শহরের বাসাইল রেল গেইট এলাকার রেহানা বেগম (৬০) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ৯ জুন নরসিংদী সদর উপজেলার হাজীপুর এলাকার আবদুর রউফ দিপ্তি (৭১) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ৮ জুন রাতে বেলাব উপজেলার করোনায় আক্রান্ত হয়ে ফজলু মিয়া (৬০) মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ডায়াবেটিসেও আক্রান্ত ছিলেন। ৮ জুন বেলাব উপজেলার জায়েদুল হক ভূইয়া (৬০) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। ৭ জুন বিকেলে নরসিংদী শহরের রাঙ্গামাটি এলাকার কাজল রাণী সাহা (৫৮) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর ডায়াবেটিস জনিত সমস্যা ছিল। ৫ জুন রায়পুরা উপজেলার আদিয়াবাদ এলাকার নুরুল ইসলাম (৫৫) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি হার্টের সমস্যায় ভুগছিলেন। ৩ জুন সকালে নরসিংদী শহরের বাসাইল মহল্লার নূরে আলম (৩৮) করোনা আক্রান্ত হয়ে নরসিংদী কোভিড হাসপাতাল (জেলা হাসপাতালে) মৃত্যুবরণ করেন। ৩১ মে) মাধবদী আনন্দী গ্রামের আব্দুল কাদের (৬৫) করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। তার ডায়াবেটিস ও হার্টের সমস্যা ছিল। ৩০ মে নরসিংদী সদর উপজেলার শেখেরচর ফুলতলা গ্রামের রিতা পাল (৫৯) করোনা আক্রান্ত হয়ে দুপুরে মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর হাইপারটেনশান জনিত সমস্যা ছিল। ২৯ মে সকাল ১০ টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে রায়পুরা উপজেলার মুছাপুর তালুককান্দী গ্রামের আফিফা বেগম, (৫৮) মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর এ্যজমা, হাইপারটেনশান এবং কিডনিজনিত সমস্যা ছিল। ২৬ মে নরসিংদী শহর এলাকার দিলীপ (৫৬) করোনা উপসর্গ নিয়ে ১০০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে (জেলা কোভিড হাসপাতাল) মৃত্যুবরণ করেন। ২৮ মে তাঁর নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ২৫ মে বেলাবো উপজেলার মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দিন (৪৫) করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃতু্যুবরণ করেন। পরবর্তীতে তার নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে পজিটিভ ফলাফল আসে। ১৯ মে) মাধবদী এলাকার শংকর ধর (৬০) নামে একজন আনুমানিক বিকেল ৫ টার দিকে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। সে করোনা পজেটিভ রোগী ছিল। করোনা আক্রান্ত হয়ে ১১ মে সকালে মাধবদী এলাকার চাঁন মিয়া (৬৫) তার নিজ বাড়ীতে মৃত্যুবরণ করেন। তার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। ৮ মে রাতে নরসিংদী শহরের বৌয়াকুড় মহল্লায় নিখিল (৫০) নামে এক ব্যাক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুর পর তার পজেটিভ রিপোর্ট আসে। ৩০ এপ্রিল রাতে পলাশ উপজেলার জিনারদী ইউনিয়নের মাঝের চর এলাকার নূর মোহাম্মদ (৫০) নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন। ২৩ এপ্রিল নরসিংদী শহরের ভাগদী মহল্লার আমজাদ হোসেন (৪৮) সন্ধ্যা ৭ টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় কুয়েত মৈত্রী হাসপাতাল এর আইসিউতে মৃত্যুবরণ করেন। এছাড়া ১৮ মে বিকেলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় হাজী শরীফ হোসেন মুক্তার (৫৭) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। তিনি সদর উপজেলার মাধবদী নুরালাপুর গ্রামের বাসিন্দা ছিলেন। নরসিংদী সদর উপজেলা কুইক রেসপন্স টিমের সভাপতি ও সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: শাহ আলম মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ১৩ মে বেলাবো উপজেলার সররাবাদ হাজী বাড়ির আতাউর রহমান (কৃষি ব্যাংকের ম্যানেজার) করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকা কুয়েত মৈত্রি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। বিষয়টি নিশ্চিত করেন বেলাবো থানা পুলিশ। ১৮এপ্রিল ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন আমির হোসেন। আমির হোসেন (৪৫) পাইকারচর ইউনিয়নের পুরানচর গ্রামের মৃত হানিফ প্রধান এর ছেলে । আমির হোসেন এর শরীরে করোনা উপসর্গ দেখা দিলে গত ১৭ এপ্রিল জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে তিনি নিজ উদ্যোগে ঢাকা কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ভর্তি হন। সেখানে পরীক্ষা করা হলে তার করোনা পজেটিভ রিজাল্ট আসে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো দেখুন